পৃথিবীতে এমন কোনো মানুষ নেই ; যার ইচ্ছা নেই টাকা ইনকাম করার।

আমরা কেউ পেশাজীবী, কেউ শ্রমজীবী, কেউ ছাত্র, কেউ ব্যবসায়ী সবাই চিন্তা করি; কিভাবে টাকা ইনকাম করা যায়!

কিন্তু যদি পৃথিবীতে কোন কঠিন কাজ থাকে সেটা হচ্ছে টাকা ইনাকাম করা। তবে, প্রবল ইচ্ছাশক্তি এবং মানসিক দক্ষতা কেবল আপনাকে স্বপ্ন পূরণে সহায়তা করতে পারে। যদি কোন ব্যক্তি তার পছন্দ অনুযায়ী যে কোন একটি বিষয়ে ভালোভাবে কাজ করে তাহলে আজ অথবা কাল ইনশাল্লাহ সফল হবে।
টাকা ইনকামের যতগুলো মাধ্যম আছে তার মধ্যে লাভজনক বিজনেস আইডিয়া হলঃ ডোমেইন ফ্লিপিং, অর্থাত্ একটি ডোমেইন নেম কিনে সেটিকে বেশি দামে বিক্রি করা।

চলুন প্রথমে জেনে নিই ডোমেইন কি ?
আমরা সবাই জানি, ডোমেইন নাম বলতে কোন একটা ওয়েবসাইটের নামকে বোঝায়।
সহজ ভাবে বললে, ডোমেইন হচ্ছে ওয়েবসাইটের এ্যাড্রেস বা ঠিকানা যেটি মানুষ ব্রাউজারে টাইপ করে ওয়েব সাইট ভিজিট করতে পারবে।
উদাহরণ হিসেবে আমরা বলতে পারি dipleg. com এটি একটি ডোমেইন।




সদ্য জন্ম নেওয়া শিশুর যেমন নাম রাখা খুবই জরুরী ঠিক তেমনি আপনার ব্যবসায়ের ডোমেইন নেইম ঠিক ততখানিই জরুরী। কারণ যতদিন আপনার ব্যবসায় বা ব্লগটি থাকবে তা সেই নামেই পরিচিত হবে। আপনার ব্লগ বা ব্যবসায়ের ডোমেইন নেইম ঠিক করার অনেকগুলো চলিত নিয়ম রয়েছে, যা আপনার ব্লগে/ব্যবসায়ের নাম বাছাই করার ক্ষেত্রে বেশ ভাল ভূমিকা রাখবে।

এই বিজনেস কিভাবে শুরু করতে পারি ?
আপনাকে প্রথমে একটি ডোমেইন নেম কিনে নিতে হবে। অনেক ক্ষেত্রেই এক্সপায়ার হয়ে যাওয়া ডোমেইন নেম কেনাই বেশি লাভজনক।

তবে, এই অনলাইন ব্যবসা শুরু করতে হলে, প্রথমে আপনার ডোমেইন নেম সম্পর্কে ভাল ভাবে গবেষণা করে নিতে হবে। জানতে হবে কোন ধরণের ডোমেইন নেম-এর চাহিদা বেশি বা কোন ডোমেইন নেম বেশি দামে বিক্রি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।
অনেক সময়েই একটি ডোমেইন নেম কেনার পর দ্রুতই সেটি আবার বিক্রি করে ফেলা যায়, তবে মনে রাখা দরকার তা সব সময়ে সত্যি নাও হতে পারে, কখনও একটি ডোমেইন নেম কিনে মাসের পর মাসও ফেলে রাখতে হতে পারে।

এই বিজনেস করার জন্য আমার কত টাকার প্রয়োজন ?
আপনি ১০ ডলার দিয়েও ডোমেইন কিনে শুরু করতে পারেন। আবার, ১০০০০ ডলার দিয়ে ডোমেইন কিনেও শুরু করতে পারেন। তবে, আপনি ডোমেইনিং নিয়ে পড়াশোনা না করে লাখ টাকা নিয়ে শুরু করেও বেশিদূর আগাতে পারবেন না।

এই বিজনেসে লাভ কেমন ?
ডোমেইন ইনভেস্টমেন্ট একবিংশ শতাব্দীর অন্যতম নিরাপদ বিজনেস। ক্ষেত্রবিশেষে ডোমেইন ইনভেস্টমেন্ট এর উপরে কয়েকশত গুন বেশি লাভ সম্ভব।
ডোমেইন বেচা – কেনা করার মার্কেটপ্লেস।
এখানে, ডোমেইন অকশন করা বা বেচাকেনা করার দশটি প্রথম সারির ওয়েবসাইটের নাম তুলে ধরা হলো। যেগুলো সম্পন্ন বিশ্বস্ত ও জনপ্রিয় ওয়েবসাইট। এ সাইট গুলোর মধ্যে যেকোনো সাইট থেকে আপনি ডোমেইন বেচাকেনা করতে পারেন।
অসংখ্য মার্কেটপ্লেস রয়েছে, যেমনঃ Godaddy auction , sedo , flippa, Dan , SnapNames, freemarket, dropcatch, bido, SnapNames, epik , Squad Help, afternic আমার দেওয়া লিস্টের বাইরে আরো অনেক মার্কেটপ্লেস হয়েছে। ডোমেইন নেম আফটার মার্কেটে গড়ে প্রতিদিন প্রায় সোয়া দুই লাখ ডলার (২ কোটি টাকা প্রায়) বেচা-কেনা হয়।

ডোমেইন ক্রয় বিক্রয় এবং ডোমেইন বিষয় বিভিন্ন তথ্য জানার জন্য
Bargain Domain
ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করুন। আমি যতটুকু পারি সহযোগিতা করব।




যেহেতু, টাকা ইনকাম করা পৃথিবীর সবচেয়ে কঠিন কাজ। সেহেতু, ব্যাপক মার্কেট রিসার্চ , মার্কেটিং এবিলিটি, ইনভেস্টর মন মানসিকতা ইত্যাদি থাকলে আপনি ডোমেইন ফ্লিপিং শুরু করতে পারেন।
আপনারা কেউ ডোমেইন ইনভেস্টমেন্ট সেক্টর নিয়ে কাজ করতে চাইলে কমেন্ট বক্সে বলতে পারেন।




Comments

  1. ভাইয়া আমি Domain নিয়ে কাজ করতে চাচ্ছি কিন্তু আপনার সাহায্য দরকার

    ReplyDelete
    Replies
    1. ডোমেইন ক্রয় বিক্রয় এবং ডোমেইন বিষয় বিভিন্ন তথ্য জানার জন্য Bargain Domain ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করুন। আমি যতটুকু পারি সহযোগিতা করব।

      Delete
  2. ডোমেইন ক্রয় বিক্রয় এবং ডোমেইন বিষয় বিভিন্ন তথ্য জানার জন্য Bargain Domain ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করুন। আমি যতটুকু পারি সহযোগিতা করব।

    ReplyDelete

Post a Comment