একটি রেজিস্ট্রার কোম্পানি থেকে ডোমেইন কেনার পরে, ডোমেনটির মেয়াদ শেষ হলে, আমি কি অন্য রেজিস্ট্রার থেকে নতুন করে ডোমেইনটি কিনতে পারব ?

এখানে আসলে কয়েকটি ব্যাপার কাজ করে। আমার লেখাটি আপনি যদি মনোযোগ সহকারে পড়েন, তাহলে আশাকরি বুঝতে পারবেন।

আপনার ডোমেইন নামটি যদি অনেক ভ্যালুয়েবল হয়। ডোমেইন এর যদি এসইওতে ভালো র‌্যাঙ্ক, প্রচুর ব্যাকলিংক এবং প্রতিমাসে যদি ভালো ভিজিটর থাকে। এখন আপনি যদি ভাবেন, ডোমেইন নামটি রিনিউ করবো না এবং ডোমেইনটি ডিলিট হয়ে যাওয়ার পর অন্য রেজিস্ট্রার কোম্পানি থেকে নতুন করে রেজিস্ট্রেশন করব। তাহলে আপনি অনেক ভুল এর ভিতরে আছেন। নোটঃ সময় এবং ডোমেইন নাম কারো জন্য বসে থাকে না।

ধরে নিলামঃ আপনার ডোমেইন নামটি অনেক ভ্যালুয়েবল অথবা সাইটে অনেক ভিজিটর, এসইওতে ভালো র‌্যাঙ্ক এবং প্রচুর ব্যাকলিংক রয়েছে। এখন যদি আপনি ডোমেইন নামটি রিনিউ না করেন। তাহলে আপনার ডোমেইন নামটি হাত-ছাড়া হয়ে যাবে।

কি কি উপায়ে ডোমেইন নামটি হাত-ছাড়া হয়ে যেতে পারে, চলুন জেনে নিইঃ

  • ডোমেইন এর মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে যাওয়ার পরও যদি রিনিউ না করেন। তখন ডোমেইন টি এক্সপায়ার্ড অকশনে চলে যায়। (তবে সব রেজিস্ট্রার কোম্পানিগুলো ডোমেইন নিলামে দেয় না)
    এক্সপায়ার্ড অকশনে থেকে যিনি সর্বোচ্চ দাম হাকাবেন, তিনি ডোমেইনটি কিনতে পারবেন। ক্সপায়ার্ড অকশন সম্পর্কে আরো জানতে, এই প্রবন্ধটি পড়ুন।
  • ডোমেইন ব্যাক অর্ডার এর মাধ্যমে ও হাত-ছাড়া হয়ে যেতে পারে। (ডোমেইন ব্যাক অর্ডার হলো, ডোমেইন মনিটরিং এবং ডোমেইন  ট্র্যাকিংয়ের পাশাপাশি ডোমেইন সফল ভাবে নিবন্ধিত করার এক ধরনের সার্ভিস। কোন ডোমেইন এক্সপায়ার্ড হয়ে গেলে অনেকেই সেই ডোমেইন ক্রয় করার জন্য বসে থাকে, ডোমেইন এভেইলএবল হওয়ার সাথে সাথে রেজিষ্ট্রেশন করতে। অনেক রেজিস্ট্রার কম্পানি এই নিশ্চয়তা দেয় যে তারা কাস্টমারের পক্ষ হয়ে, সেই ডোমেইনটা এভেইলএবল হবার সাথে সাথে রেজিষ্ট্রেশন করে ফেলবে। এই বিষয় টি হলো ডোমেইন ব্যাক অর্ডার) ডোমেইন ব্যাক অর্ডার সম্পর্কে আরো জানতে, এই প্রবন্ধটি পড়ুন।
যদি কেউ ব্যাক অর্ডার অথবা এক্সপায়ার্ড অকশন থেকে না কিনেন। সেক্ষেত্রে, আপনি অন্য রেজিস্ট্রার কোম্পানি থেকে নতুন করে ডোমেইন নামটি রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন।

আমার পরামর্শ হলোঃ ডোমেইন নামটির মেয়াদ থাকা অবস্থায় অন্য রেজিস্ট্রার কোম্পানিতে ট্রান্সফার করে নিন। (ডোমেইন ট্রান্সফার করতে সাধারনত রেজিস্ট্রেশন এর সম-পরিমান টাকা নেওয়া হয় এবং ট্রান্সফারের পর ডোমেইনের বর্তমান মেয়াদ এর সাথে, এক বছর সময় যুক্ত করে দেওয়া হয়। ডোমেইন ট্রান্সফার ডোমেইন রিনিউ এর মতনই কাজ করে, শুধু রেজিস্ট্রার কোম্পানি পরিবর্তন হয়) 

নোটঃ কথায় আছে দাঁত থাকতে দাঁতের মর্যাদা অনেকে বোঝে না।

আপনার আরো জানা দরকারঃ ডোমেইন এর মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পর ও আপনাকে ৬০ দিনের মতন সময় দিবে, ডোমেইন নামটি রিনিউ করার। এই বিষয়ে আরো জানতে এই প্রবন্ধটি পড়ুন, ডোমেইন এর মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে যাওয়ার পরও যদি রিনুউ না করি, তাহলে কি হবে ?

প্রবন্ধটির ক্রেডিট এবং রিসার্চঃ চয়ন মোল্লা। লেখক এর অনুমতি ছাড়া প্রবন্ধটির অনুলিপি অন্য কোথাও শেয়ার করা যাবে না।

Comments